মুক্তি পেয়ে ছেলেকে দেখতে জেলখানায় ফারুক আবদুল্লাহ

ভারতের জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুক আব্দুল্লাহ সাত মাস পর গত শুক্রবার গৃহবন্দি দশা থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মুক্তি পাওয়ার পর শনিবার (১৪ মার্চ) ছেলে ওমর আব্দুল্লাহকে দেখতে শ্রীনগরের সাব জেলে চলে যান তিনি। 

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, বন্দি দশা থেকে মুক্তি পাবার পর শনিবার নিজ বাসভবন থেকে বের হয়ে শ্রীনগরের হরি নিবাসে যান ফারুক। সেখানে তৈরি সাব জেলে আটক তার ছেলে ওমরের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। এ সময় বাবা ও ছেলে একে অন্যকে জড়িয়ে ধরেন বলে জানান উপস্থিত সংবাদকর্মীরা।

এ সময় ফারুকের সঙ্গে ছিলেন তার স্ত্রী মলি আবদুল্লাহ ও কন্যা সাফিয়া। দীর্ঘদিন পর বন্দিদশা থেকে মুক্তি পাওয়ায় অনেকেই জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতে উদগ্রীব। 

কিন্তু চোখের ছানির সার্জারি ও করোনাভাইরাসের কারণে সবাইকে সাক্ষাতের অনুমতি দেয়া হচ্ছে না। তবে কংগ্রেস সংসদ সদস্য গুলাম নবি আজাদের সঙ্গে দেখা করেন ফারুক। দুই নেতার মধ্যে কিছুক্ষণ কথাও হয়। সাক্ষাৎ শেষে আজাদ বলেন, নেতাদের তোতাপাখির মতো খাঁচায় বন্দি করা উচিত নয়।

গত বছরের ৫ আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা প্রত্যাহার করে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। 

এর পর জনসুরক্ষা আইনের আওতায় ফারুকসহ কাশ্মীরের শীর্ষ নেতাদের আটক করা হয়। ওই আইনে তিন মাস বন্দি রাখার বিধান থাকলেও পরে তাদের বন্দিত্বের মেয়াদ বাড়ায় নরেন্দ্র মোদির সরকার।