প্রমাণ আছে উহানের ল্যাব থেকেই ছড়িয়েছে করোনা: ট্রাম্প

বুধবার ওভাল অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে কোভিড-১৯ মহামারী বিশ্বময় ছড়ানোর জন্য চীনকে দায়ী করে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এবার সেই দাবিকে আরও জোরালো করেছেন তিনি.বলেছেন, উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি থেকেই বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে কোভিড১৯। এর সপক্ষে তার কাছে অকাট্য প্রমাণ আছে বলেও দাবি তার।

সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে প্রশ্ন করা হয় যে, তিনি কীসের ভিত্তিতে চীন থেকেই এই ভাইরাস ছড়ানো হয়েছে বলে দাবি করছেন? 

এর জবাবে ট্রাম্প জানিয়েছেন তার কাছে এমন কিছু প্রমাণ আছে যা নিশ্চিত করে যে, কোভিড-১৯ এর উৎস চীনের উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি। পাশাপাশি ‘হ্যাঁ আমার কাছে এর প্রমাণ আছে’, বলেন ট্রাম্প।

সাংবাদিকরা কী প্রমাণ আছে সেকথা জানতে চাইলে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘সেসব আমি আপনাদের সামনে বলতে পারি না।’

করোনা ছড়ানোর জন্য ক্ষতিপূরণ চাইবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, চীনের থেকে শুধু ক্ষতিপূরণ আদায় করাই নয়, আরও কঠিন পদক্ষেপ নিতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র।

ইতিমধ্যেই যুক্তরাষ্ট্র চীনের ক্ষেত্রে আমদানি শুল্ক বহুগুণ বাড়িয়ে দেয়ার কথা ভাবছে। পাশাপাশি ওই দেশ এমনও হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে, চীন যদি যুক্তরাষ্ট্রের শর্ত মেনে না চলে তবে তাদের সঙ্গে সব ধরণের বাণিজ্য চুক্তিও শেষ করে দেবে ওই দেশ।

ডোনাল্ড ট্রাম্প আরও বলেন, আগামী নভেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাকে হারানর জন্যে চীন যেকোনো পথই অবলম্বন করতে পারে। চীন করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে যেভাবে আচরণ করছে, তারই প্রমাণ যে এর পিছনে তাদের হাত আছে।

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া কোভিড-১৯ বিশ্বের ২১২টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের ধারে-কাছেও নেই কোনো দেশ।

যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই ছড়িয়ে পড়েছে এই প্রাণঘাতী ভাইরাস। করোনার প্রাণহানি ও আক্রান্তের পরিসংখ্যান রাখা আন্তর্জাতিক সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার দেশটিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ৮২৯। অপরদিকে একদিনেই মারা গেছে ২ হাজার ২০১ জন।

বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু হয়েছিল ২,৫০২ জনের। আর মঙ্গলবার মৃত্যু সংখ্যা ছিল ২,২০৭ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১০ লাখ ৯৫ হাজার ২১০ এবং মারা গেছেন ৬৩ হাজার ৮৬১ জন। ইতোমধ্যেই সুস্থ হয়ে উঠেছে ১ লাখ ৫৫ হাজার ৭৩৭ জন।