অভিভাবকের কাছে অধ্যক্ষের চিঠি || আপনি তাদের ভালো বন্ধু, বিচারক না

প্রিয় বাবা-মা,

আপনার বাচ্চার পরীক্ষা খুব তাড়াতাড়ি শুরু হয়ে যাবে। আমি জানি, আপনারা সবাই খুব চিন্তিত আপনার সন্তানের ভালো ফলাফল নিয়ে।

 

কিন্তু, আপনার কি জানা আছে যেসকল বাচ্চারা পরীক্ষা দিতে বসবে—সেখানে—তাদের মধ্যে একজন চিত্রশিল্পী আছে, যার গণিত বোঝার দরকার নেই? একজন উদ্দ্যোক্তা আছে, যার ইতিহাস বা সাহিত্য বোঝার দরকার নেই। সেখানে একজন মিউজিশিয়ানও আছে, যার কাছে রসায়নের নম্বর কোনো মূল্য বহন করে না। সেখানে একজন এথলেট আছে, যার শারীরিক ফিটনেস পদার্থবিজ্ঞানের চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

 

যদি আপনার বাচ্চা সর্বোচ্চ নম্বর পায়, তাহলে এটা চমৎকার ব্যাপার! কিন্তু, যদি সে ভালো নম্বর না পায়, অনুগ্রহ করে তার আত্মবিশ্বাস এবং আত্মসম্মান কেড়ে নেবেন না। তাদেরকে বলুন,”এটা কোনো ব্যাপারই না। এটা কেবল শুধুমাত্র একটি পরীক্ষা।

আপনি তাদের ভালোবাসুন। আপনি তাদের ভালো বন্ধু, বিচারক না। দয়া করে এই সহজ কাজটি করতে শুরু করুন। এবং আপনি যখন এটা করতে থাকবেন, দেখবেন আপনার সন্তান কিভাবে পুরো পৃথিবী জয় করে ফেলতে সক্ষম হবে। একটি পরীক্ষা বা কম নম্বর কখনোই তাদের স্বপ্ন এবং মেধাকে হারিয়ে ফেলে না এবং এটা ভাবার কোনো কারণ নেই যে, এই পৃথিবীতে কেবল ডাক্তার এবং ইঞ্জিনিয়াররাই একমাত্র সুখী মানুষ।

অভিনন্দন!

অধ্যক্ষ

সিঙ্গাপুরের একটি স্কুলের অধ্যক্ষ স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবকদের কাছে এই চিঠি লিখেছিলেন। চিঠিটি মূল ইংরেজি থেকে অনুবাদ করেন আলমগীর মোহাম্মদ। তিনি পেশায় শিক্ষক, চট্টগ্রাম প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি পড়ান।