ইন্দোনেশিয়া ট্র্যাজেডি: সুনেজার আর দেশে ফেরা হল না!

[su_heading size=”22″]ইন্দোনেশিয়ায় সলিল সমাধি হয়েছে ১৮৯ জন বিমান আরোহীর।  লায়ন এয়ারের যাত্রীবাহী বোয়িং ৭৩৭ বিমানটির ক্যাপ্টেন ছিলেন দিল্লির ময়ূর বিহার এলাকার পাইলট সুনেজা। সুনেজা ইন্দোনেশিয়া ছেড়ে নিজ দেশে ফিরে আসতে চেয়েছিলেন।[/su_heading]

সুনেজা ভারতীয় বিমান সংস্থার সঙ্গে কথাবার্তাও এগিয়েছিল। কিন্তু সেই ফেরা আর হল না। সোমবার সকাল ছ’টা ২০ মিনিটে জাকার্তা বিমানবন্দর ছাড়ার ১৩ মিনিটের মধ্যেই মাঝ সমুদ্রে ভেঙে পড়ে লায়ন এয়ারের যাত্রীবাহী বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি। কেবিন ক্রু ও যাত্রী মিলিয়ে ১৮৯ জনের কেউই আর বেঁচে নেই বলেই মনে করছেন উদ্ধারকারীরা।

দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছে যাত্রীদের বেশ কিছু সামগ্রী উদ্ধার করলেও এখনও বিমানের ভগ্নাবশেষের সন্ধান মেলেনি। উদ্ধার হয়েছে বেশ কয়েকটি মৃতদেহও।

ভারতীয় একটি বিমান সংস্থার এক পদস্থ কর্তা সংবাদ মাধ্যমে বলেন, ‘‘এই জুলাই মাসেই ওর সঙ্গে কথা হয়েছিল। খুবই অমায়িক ছিলেন সুনেজা। ওঁর দক্ষতা, কর্তব্যপরায়ণতা ও দায়িত্ববোধ-সহ মোটের উপর ট্র্যাক রেকর্ডের জন্যই আমরা ওঁকে নিতে চেয়েছিলাম। ওঁর শুধু একটাই আর্জি ছিল, যেন দিল্লিতে পোস্টিং দেওয়া হয়।’’ ওই পদস্থ কর্তাও ক্যাপ্টেন সুনেজা এবং দুর্ঘটনাগ্রস্ত বিমানের যাত্রীদের জন্য প্রার্থনা করেছেন।