মানুষের শরীর থেকে বের হয়েছে জুতো?

[su_heading size=”17″]কাল চলে গেছে হ্যালোউইন। হ্যালোউইন মানেই সাজের ভিন্নতা। কে কত ভৌতিক ঢঙ্গে নিজেকে রাঙাতে পারে সেটাই ত হ্যালোউইন। বাংলাদেশের হ্যালোউইন খুব বেশী পরিচিত না হলেও যমুনা ফিউচার পার্কে হ্যালোউইন নিয়ে বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়। [/su_heading]

উরু পর্যন্ত ঢাকা প্লাস্টিকের তৈরি এই জুতোর প্রধান মডেলটি একেবারে চামড়ার রঙের। তাই শরীরের অংশ হিসাবে ভ্রম হবে প্রথম দর্শনেই। আর একটি মডেলের রং কালো। হ্যালোউইনের কথা মাথায় রেখেই এই দুই রংকে বেছেছেন প্রস্তুতকারীরা। তবে চাহিদার কথা ভেবে অন্যান্য রঙের কয়েকটি মডেলও রাখা হয়েছে।

এই জুতোর নকশা এমন ভাবে করা হয়েছে প্রথম দর্শনে মনে হবে পায়ের বর্ধিত অংশ। যাতে কৃত্রিম আঙুলও আছে। পরলে তা পায়ের আঙুলের থেকে আলাদা বোঝার জো নেই! এই জুতোর মাঝে রয়েছে লম্বা লম্বা কাঁটা, যা জুতোর রূপে যোগ করেছে ভৌতিক ছোঁয়া।

উচ্চতায় খাটো মানুষরাও পছন্দ করতে পারেন বিশেষ এই জুতা। জুতোর হিল এতই উঁচু ও সরু যে পরলে উচ্চতা এক লাফে বেড়ে যাবে অনেকটাই।