যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে গুগল কর্মীদের নজিরবিহীন প্রতিবাদ

যৌন হয়রানির অভিযোগে বিশ্বজুড়ে গুগলের অফিসগুলোতে বৃহস্পতিবার কর্মবিরতিতে যোগ দিয়েছেন শত শত কর্মী। এই প্রতিবাদে অংশ নেওয়া কর্মীরা চাইছেন যৌন অসদাচরণের অভিযোগ যেন তারা চাইলে আদালতেও নিয়ে যেতে পারেন।

গুগলের যে কর্মীরা তাদের কাজ ফেলে অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন, তারা তাদের ডেস্কে একটি নোট লিখে রেখে যান।  লেখা ছিল, ‘আমি আমার ডেস্কে নেই, কারণ আমি অন্য গুগল কর্মী এবং কনট্রাক্টরদের সঙ্গে মিলে যৌন হয়রানি, স্বচ্ছতার অভাব ইত্যাদির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অংশ নিতে অফিস থেকে বেরিয়ে যাচ্ছি।’

গুগল কর্মীরা যেসব দাবি জানাচ্ছেন সেগুলো হলো :

১. গুগলের বর্তমান ও ভবিষ্যৎ কর্মীদের বেলায় হয়রানি বা বৈষম্যের অভিযোগ উঠলে তা সালিশের মাধ্যমে নিষ্পত্তির বাধ্যবাধকতা তুলে দেওয়া।

২. যৌন হয়রানির বিষয়ে রিপোর্ট জনসমক্ষে প্রকাশ করা।

৩. বেতন এবং সুযোগ সুবিধার ক্ষেত্রে বৈষম্য বিলোপের অঙ্গীকার করা।

৪. যৌন অসদাচরণের অভিযোগ যেন নিরাপদে এবং অজ্ঞাতনামা হিসেবে দায়ের করা যায়, তার ব্যবস্থা করা।

এই প্রতিবাদের অধিকারকে সমর্থন করেছেন,  গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাইও। তিনি জানিয়েছেন, কোম্পানি থেকে অন্তত ৪৮ জন কর্মীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে ছাঁটাই করা হয়েছে। যাদের কাউকেই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়নি।

উল্লেখ্য, গুগলে এই প্রতিবাদের সূচনা হয় উচ্চপদস্থ নির্বাহী কর্মকর্তা ও অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম নির্মাতা অ্যান্ডি রুবিনের  বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ ওঠার পর। তিনি সম্প্রতি গুগলের চাকরি ছেড়ে দেন। তার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ থাকার পরও তাকে চাকরি ছাড়ার সময় মোট নয় কোটি ডলার দেয় গুগল।

সূত্র: বিবিসি।