ক্যামেরুনে অপহরণকৃত ৭৯ শিক্ষার্থীর মুক্তি!

ক্যামেরুনের অপহরণকৃত ৭৯ জন স্কুল শিক্ষার্থীকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে। যদিও স্কুলের তিনজন কর্মীর দু’জনকে এখনও আটকে রাখা হয়েছে বলে গীর্জার এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। শিক্ষার্থীদের বয়স এগারো থেকে সতেরো বছরের মধ্যে।   

The students and three staff members were taken from the Presbyterian Secondary School Nkwen in Bamenda.

‘প্রাদেশিক রাজধানী বামেন্ডার একটি গীর্জায় আটককৃতদের গত রাত্রে নিয়ে আসা হয়। তাদের ক্লান্ত দেখাচ্ছিল। মানসিকভাবে তারা ভেঙে পড়েছিল’, বলেন ফঙ্কি স্যামুয়েল ফরবা, দেশের প্রেসব্যতেরিয়ান গীর্জার সভাপতি। অপহরণকারীদের সাথে এখনও আটককৃত কর্মীদের মুক্তির জন্য যোগাযোগ করা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

গীর্জার প্রধান আরও বলেন, আমরা বাবা-মা এবং অভিভাবকদের তাদের সন্তানদের বাড়ি নিয়ে যেতে অনুরোধ করেছি।


‘এটা সত্যি দুঃখজনক যে আমাদের স্কুলটা বন্ধ করতে হচ্ছে এবং প্রায় ৭০০ শিক্ষার্থীদের সেজন্য বাড়ি ফিরতে হবে। রাজ্য তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারছে না। কারণ সশস্ত্র গ্রুপগুলো বারবার তাদের উপর আক্রমণ করছে, অপহরণ করছে’ তিনি বলেন।


তিনি আরও বলেন, এর আগেও স্কুলের কিছু শিক্ষার্থীদের অপহরণ করা হয় এবং সে জন্য সশস্ত্র দলগুলোকে ৪০০০ ডলার দিতে হয়েছিল স্কুল থেকে। এটা চলতে দেওয়া যায় না।

অন্যান্য স্কুলেও অপহরণের ঘটনা ঘটছে। তবে রবিবার হওয়া এই অপহরণে সবথেকে বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থীদের জিম্মি করা হয়। এছাড়া বিচ্ছিন্নতাবাদী দলগুলো অন্তত ১০০ স্কুল আগুনে পুড়িয়ে দিয়েছে এবং স্কুলগুলোকে প্রশিক্ষণ কেন্দ্র বানাতে তারা অনেক স্কুল থেকে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের বের করে দিয়েছে।

উত্তর পশ্চিম অঞ্চলের গভর্নর বলেন, ‘স্কুলগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আমরা আমাদের সর্বাত্ত্বক চেষ্টা করেছি। তবে এক্ষেত্রে সফল হতে, স্থানীয়দের সাহায্য প্রয়োজন আমাদের। গ্রামে কখনও অপরিচিত কাউকে দেখা গেলে লোকজনকে সেনাবাহিনীকে জানাতে হবে’।

তাহ প্যাসকেল,অপহরণকৃত এক শিক্ষার্থীর বাবা বলেন তিনি গভর্নরের কথা বিশ্বাস করছেন না। তিনি বলেন, তিনি (গভর্নর) কীভাবে নিরাপত্তার কথা বলছেন যখন প্রতিদিনই আমাদের স্কুলগুলোতে অত্যাচার চালানো হচ্ছে। ছাত্র, শিক্ষকদের হত্যা করা হচ্ছে। আর এটা করা হচ্ছে সামরিক বাহিনীর উপস্থিতিতেই৷