জামিনে মুক্তি পেয়েছেন আমীর খসরু

সোমবার (১২ নভেম্বর) সকাল পৌনে ৭ টায় নিরাপদ সড়কের আন্দোলনে উসকানির অভিযোগে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় কারাগারে যাবার ২২ দিন পর জামিনে মুক্তি পেয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। এমনটা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক।

জেল সুপার বলেন, হাইকোর্টের জামিনের আদেশ গতকাল (রোববার) আমরা পেয়েছিলাম। যাচাই বাছাই শেষে উনাকে আজ (সোমবার) মুক্তি দেওয়া হয়েছে।

মুক্তির পর আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী প্রথমে নগরীর দক্ষিণ কাট্টলী এলাকায় নিজ বাড়িতে যান। সেখানে বাবা-মার কবর জিয়ারত করে তিনি নগরীর মেহেদিবাগের বাসায় ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন আমীর খসরুর ব্যক্তিগত সহকারী মো.সেলিম।

চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর গত ৪ আগস্ট বিএনপি নেতা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করে রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অন্তর্ঘাত ও ষড়যন্ত্রের চেষ্টার অভিযোগ তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ (২) ধারা ও বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫/৩ ধারায় অভিযোগ আনা হয়।